1. admin@prothombela.com : দৈনিক প্রথমবেলা : দৈনিক প্রথমবেলা
  2. alhajshahalam99@gmail.com : দৈনিক প্রথমবেলা সত্যে অবিচল দৈনিক : দৈনিক প্রথমবেলা সত্যে অবিচল দৈনিক
  3. 65@sondat.com.vn : claudejnj9 :
শিরোনাম :
ধান ক্ষেত থেকে অজ্ঞাত বৃদ্ধের মরদেহ উদ্ধার সৈয়দপুরে শেখ হাসিনার উন্নয়ন কর্মকান্ড জনসম্মুখে তুলে ধরা ও যুদ্ধাপরাধীদের নতুন চক্রান্তের প্রতিবাদে স্থানীয় আ’লীগের জনসভা নওগাঁ রাণীনগরে তাল বীজ রোপণের উদ্বোধন দরিদ্র মানুষের সামাজিক নিরাপত্তা বেড়েছে: খাদ্যমন্ত্রী ভালুকায় জনগণ ও শ্রমিকের কষ্ট লাগবে রাস্তা সংস্কারের উদ্বোধন সাতক্ষীরায় পানিবন্দী মানুষের মানববন্ধন নারায়ণ হত্যাকাণ্ডের খুনী রাজু  আটক জামুকা’র সুপারিশ বিহীন বেসামরিক গেজেট ধারী ২৩ জন বীর মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই-বাছাই সম্পন্ন ভাঙ্গা সাঁকোয় লাখ মানুষের চলাচলে চরম দুর্ভোগ নালিতাবড়ীতে বাল্যবিবাহে- বরের তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার  হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা

  • আপডেট টাইম: শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১
  • ৪২ বার দেখা হয়েছে

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার  হস্তক্ষেপে বাল্যবিয়ে থেকে রক্ষা পেলো জান্নাতী (১৩) নামের অষ্টম শ্রেণীর এক মাদ্রাসা  ছাত্রী।

শুক্রবার(১৮ জুন) রাত ১০টার দিকে  উপজেলার গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়নের সরাতৈল মধ্যপাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফের বাড়িতে গিয়ে ওই বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  রুমানা তানজিন অন্তরা।

উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়নের সরাতৈল মধ্যপাড়া গ্রামের আব্দুল লতিফের মেয়ে জান্নাতির সাথে একই উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের চরহামজানি গ্রামের বাদশার ছেলে আবুল হোসেনের বিয়ে ঠিক হয়৷ সে অনুয়ায়ী শুক্রবার রাতে তাদের বিয়ের আয়োজন চলছিলো। পরে খবর পেয়ে রাতেই ওই শিক্ষার্থীর বাড়িতে গিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা  রুমানা তানজিন অন্তরা বিয়ে বন্ধ করে দেন। এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্যের উপস্থিতিতে ১৮ বছরের আগে মেয়ের বিয়ে নয়, এই শর্তে কিশোরীর মা–বাবার মুচলেকা নেওয়া হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুমানা তানজিন অন্তরা জানান, স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে জানতে পারি মাত্র ১৩ বছর বয়সে বাল্যবিবাহ অভিশাপের শিকার হতে যাচ্ছে একটি ফুটফুটে মেয়ে। বিষয়টি জানতে পেরে মেয়েটিকে রক্ষার উদ্দেশ্যে বেরিয়ে পড়ি। প্রায় ১ কিলো পায়ে হেটে বৃষ্টি মধ্যে মেয়েটির বাসায় হাজির হয়ে দেখতে পাই,মেয়েটির অভিভাবক বিয়ের সকল আয়োজন করেছেন। তবে আমাদের আসার সংবাদ পেয়ে বর‍পক্ষ কণের বাড়িতে না এসে কাছাকাছি কোথাও অবস্থান করছেন বলে জানা যায়। দারিদ্র্যের কারণে মেয়েকে অপ্রাপ্ত বয়সে বিয়ে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন বলে মেয়ের বাবা স্বীকার করেন।

তিনি আরো বলেন, মেয়ে ও মেয়ের অভিভাবকদের বাল্যবিবাহের কুফল সম্পর্কে এবং এই অপরাধের শাস্তি সম্পর্কে জানালে তারা তাদের ভুল স্বীকার করেন। মেয়েকে ১৮ বছর পূর্ণ হবার পূর্বে বিয়ে দেবেন না মর্মে মুচলেকা প্রদান করেন।

এসময় মেয়েটির পরিবারকে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে যথাসাধ্য সহায়তার আশ্বাস প্রদান করা হয়।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরো খবর
প্রকাশক কর্তৃক স্যানমিক প্রিন্টিং এন্ড প্যাকেজেস, ৫২/২ টয়েনবি সার্কুলার রোড, সুত্রাপুর, ঢাকা থেকে মুদ্রিত। সর্বসত্ত্ব সংরক্ষিত © ২০২১ প্রথমবেলা
Site Customized By Rahatit.Com