সত্যে অবিচল দৈনিক প্রথমবেলা

নূর হোসেন আবাহনীর নির্বাচনের সকল খরচ বহন করবে সাধারণ ভোটাররাই, সততা ও জনপ্রিয়তার বহিঃপ্রকাশ

34

মোঃ জহুরুল ইসলাম ভূঁইয়া, জামালপুরঃ

 

সম্ভাব্য প্রাথীদের দৌঁড় ঝাঁপে জামালপুর সদর পৌর এলাকা এখন সরগরম হয়ে উঠেছে। নির্বাচনের দিনক্ষণ নির্ধারণ না হলেও প্রার্থীদের দৌর ঝাঁপে নির্বাচনের আমেজ দিন দিন জমে উঠছে। ইতি মধ্যে সম্ভাব্য প্রার্থীরা পৌরবাসীর দোয়া কামনা করে নিজেদের ছবি সম্বলিত পোষ্টার লাগিয়ে গোটা জামালপুর পৌর এলাকা ছাপিয়ে ফেলেছেন। শহরের পাড়া মহল্লায় এখন নির্বাচনের আলাপ-চারিতাই প্রাধান্য পাচ্ছে। ভোটারদের সমর্থন নিতে তারা নিচ্ছেন নানা কৌশল। তবে ভোটাররা করছেন অন্য হিসাব নিকাশ। তারা হিসেব কষছেন অতীত ও ভবিষ্যৎ নিয়ে। অতীতে কে কি করেছেন এবং ভবিষ্যতে কার দ্বারা পৌর সভার উন্নয়ন হবে এসব হিসেব কষতেও ভুল করছেননা সাধারন ভোটাররা।

এ দৌড়ে সৎ, যোগ্য প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে মনোনয়ন প্রার্থী হিসেবে আলোচনায় এসেছেন জামালপুর পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সফল সভাপতি নুর হোসেন আবাহনী।

এল,এল,বি (অনার্স) ও এল, এল,এম (মাস্টার্স) ডিগ্রি অর্জন করে শিক্ষানবিস আইনজীবী হিসেবে নূর হোসেন কর্মজীবন শুরু করেছেন। পাশাপাশি সামাজিক ও রাজনৈতিক অপরাধ ও অপরাধ বিজ্ঞান নিয়ে রিসার্চ করছেন। তিনি পৌর ছাত্রলীগের দায়িত্ব পালনে দৃষ্টান্তমূলক সফল হয়েছেন। ছাত্র সমাজের পাশাপাশি পৌরবাসীর ভালোবাসা, বিশ্বাস ও আস্থা অর্জন করেতে সমর্থ হয়েছেন। দায়িত্ব থাকা অবস্থায় কোনদিন টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজি, ধান্দাবাজি, ভূমিদস্যু ও ভুয়া প্রশ্ন বিক্রি, অন্যায় অনিয়মের কথা শোনা যায়নি। মোটকথা কোন ধরনের দুর্নীতির সাথে কখনোই যুক্ত ছিলেন না, বরঞ্চ সবসময়ই দুর্নীতি ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে এসেছেন।

করোনা কালীন এই সময়ে করছেন বাড়ি বাড়ি গিয়ে জনসচেতনামূলক আলোচনা। সেই সাথে বিনামূল্যে দিয়েছেন ম্যাক্স, সাবান, হ্যান্ড স্যানিটাইজার,নিজের আবাদী ফসল ভুট্টা, লেবু, শাক-সবজিসহ বিতরণ করছেন ইফতার, চাল, ডাল, মুরগী, ঈদ উপহার ও রান্না করা খাবার।

এছাড়াও বানভাসীদেরকে শুকনো খাবারের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় ঔষধ, খাদ্যসামগ্রীসহ দিয়েছেন নগদ আর্থিক সহায়তা, করেছেন নিজে ও বন্ধুদের নিয়ে স্বেচ্ছায় রক্ত দান কার্যক্রম, অসহায় হয়ে রাস্তায় পড়ে থাকা পাগলদের চিকিৎসা ও থাকা খাওয়ার ব্যবস্থা, প্রখর রোদে গরমে গণমানুষের জন্য বিশুদ্ধ ঠান্ডা পানির ব্যবস্থা, সুবিধা বঞ্চিত শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য দিয়েছেন বই,খাতা ও কলম।

এছাড়াও করেছেন সাধ্যমত নিজ গ্রামের ভাঙ্গা রাস্তা মেরামত। সামাজিক সংগঠনের মধ্যেও রয়েছে তার গভীর সম্পর্ক। ছিলেন যুব রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট সরকারী আশেক মাহমুদ কলেজ শাখার দলনেতা। প্রতিষ্ঠা করেছেন বিদ্যানন্দিনী শেখ হাসিনা পাঠাগার।এছাড়াও পরিবর্তন হবো পরিবর্তন করবো সংগঠনের উপদেষ্টা। সামাজিক সংগঠনের পাশাপাশি ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানেও নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি পাথালিয়া গজপাড়া জামে মসজিদ ও জামালুল কোরআন মাদ্রাসা ও এতিম খানার সাধারণ সম্পাদক। নুর হোসেন আবাহনী নিজের সম্পর্ক বলতে গিয়ে বলেন ,”আমি উচ্চশিক্ষিত ও সাদামাটা জীবন যাপন করি, নিজে না খেয়ে অসহায় মানুষের মুখে খাবার তুলে দেই। আমি মানবিক ও কিছুটা ধার্মিক। দুর্নীতি আমাকে আজ পর্যন্ত স্পর্শ করতে পারেনি আর কোনদিন পারবেও না ইনশাআল্লাহ। আমি অর্থ উপার্জনের জন্য রাজনীতি করি না, বাবার বেতনের টাকা, কৃষি থেকে কিছু আয় ও নিজের পরিশ্রমের পয়সা খরচ করে রাজনীতি করি।

তিনি আরও বলেন, আমি যদি জামালপুর পৌরসভার মেয়র হই, তাহলে পৌরসভা হবে সকল প্রকার দুর্নীতিমুক্ত, উন্নয়নের কাজগুলো হবে টেকসই, থাকবে না মাদক ব্যবসায়ী, চোর বাটপার ও ভূমিদস্যু। শান্তিতে ঘুমাবে মানুষ, জীবন ও সম্পদের নিরাপত্তা দিব। পৌরসভার মানুষগুলো হয়ে উঠবে ‘আলোকিত ও মানবিক’।

মনোনয়ন এর ব্যাপারে দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর উদ্দেশ্য বিনয়ের সাথে বলেন, মমতাময়ী আপা, দুর্নীতিমুক্ত, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত, সচ্ছল, হাসিখুশি, উন্নত রাষ্ট্র ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্যে আপনি যে সমস্ত নেতৃত্ব খুঁজছেন! বুকে হাত রেখে বলতে পারি “আমিই সে।”

আমাকে যদি নমিনেশন দেন তাহলে জামালপুর পৌরসভার সর্বস্তরের জনগণ বলবে, একজন সৎ, শিক্ষিত, ন্যায়পরায়ণ ও দুর্নীতিমুক্ত ছেলেকে নমিনেশন দেয়া হয়েছে সুতরাং আমরা সবাই নৌকা মার্কায় ভোট দিবো।
প্রিয় আপা, যেদিন থেকে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব আমাদের মত সৎ, শিক্ষিত ও মানবিক তরুণদের বসাবেন সেদিন থেকেই শুরু হবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা নির্মাণের কাজ। আমাদেরকে দায়িত্ব দিতে যত দেরি করবেন তত পিছিয়ে যাবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার কাজ।“

বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা তাকেই নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করার জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন দিতে পারে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন এলাকার জনগন।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.